কম্পিটিটর রিসার্চ কেন গুরুত্বপূর্ন ?

কম্পিটিটর রিসার্চ কেন গুরুত্বপূর্ন
Share This Post

আপনার কম্পিটিটরদের অবমূল্যায়ন করবেন না। একটি সফল ব্রান্ড তৈরী হওয়ার পেছনে অনেক গুলো কৌশল থাকে এর মধ্যে  গুরুত্বপূর্ণ কৌশল হলো আপনার কম্পিটিটরদের উপর নজর রাখা।

কম্পিটিটর রিসার্চ হলো এমন একধরনের রিসার্চ, যার মাধ্যমে আপনি আপনার কম্পিটিটররা কী করছে তা পর্যবেক্ষণ ও বিশ্লেষণ করতে পারবেন। কম্পিটিটর রিসার্চ পরিচালনার লক্ষ্য হলো কম্পিটিটিভ ল্যান্ডস্কেপ সম্পর্কে গভীরভাবে উপলব্ধি করা। একটি ব্যাবসা স্থাপন এবং পরিচালনার মূল পর্যায়ে কম্পিটিটর রিসার্চ বিশেষ ভাবে উপকারী হতে পারে। এটি আপনাকে মার্কেটে আপনার অপরচুনেটি কত টুকু সেটা আইডেন্টিফাই করতে সাহায্য করবে। 

কম্পিটিটর রিসার্চ করার সুবিধা কী?

ইফেক্টিভ কম্পিটিটর রিসার্চ মার্কেট এনালাইসি করে আপনার বিজনেসের জন্যে প্রোপার প্লানিং এবং গ্রোথ এনসিউর করতে পারে। 

আপনার কম্পিটিটররা যা করছে তার সাথে তাল মিলিয়ে চলার কিছু মূল সুবিধাগুলো হল

এছাড়াও আপনার কম্পিটিটররা যা করছে তার সাথে তাল মিলিয়ে চলার কিছু মূল সুবিধাগুলো হল-

  • মার্কেট এর সামগ্রিক সবকিছু বুঝতে সাহায্য করে।
  • কম্পিটিটরদের তুলনায় আপনার ব্যাবসার strengths এবং weaknesses সনাক্ত করতে সুবিধা হয়।
  • মার্কেটের সুযোগ-সুবিধা এবং অসুবিধা গুলো সনাক্ত করতে সুবিধা হয়। 
  • কম্পিটিটরদের pricing সম্পর্কে নলেজ রেখে আপনার অফার নির্ধারণে সাহায্য হয়।
  • মার্কেটে নতুন ট্রেন্ড সনাক্ত করতে সাহায্য করে।
  • নতুন আইডিয়ার প্রতি ইন্সপায়ার করে।
  • কোন কম্পিটিটর স্ট্রাটেজিস গুলো সফল হলো এবং কোনটি নয় তা আবিষ্কার করতে সাহায্য করে। 
  • এই রিসার্চ আপনাকে জানতে সাহায্য করবে কিভাবে আপনি আপনার নিজের ব্যাবসার স্ট্রাটেজি উন্নত করতে পারেন।
  • আপনাকে জানতে সাহায্য করবে যে আপনি কীভাবে আপনার গ্রাহকদের মনোযোগ ধরে রাখতে এই ক্ষেত্রগুলোতে আপনার কম্পিটিটরদের ছাড়িয়ে যেতে পারেন। 

যদি আপনার ব্যাবসায় কম্পিটিটর রিসার্চ করার জন্য সময় বা সংস্থান না থাকে তবে এর অর্থ এই নয় যে আপনার এই সুবিধা গুলো আপনি এড়িয়ে যাবেন। 

প্রতিযোগীদের সাথে নিজেকে তুলনা করার গুরুত্ব :

আপনি শুরু করার আগে আপনাকে বুঝতে হবে আপনার প্রতিযোগী কারা। কিন্তু আপনি এটা কীভাবে করবেন? কোনো একটি বিজনেস আপনার কম্পিটিটর কিনা তা নির্ধারণ করার সর্বোত্তম উপায় হলো আপনার খুজেঁ বের করতে হবে –

  • তারা কী ধরনের সার্ভিস দিচ্ছে?
  • আপনি কি তাদের মতো অনুরূপ অডিয়েন্স টার্গেট করছেন? 

মার্কেট এনালাইসিস করলে আপনি মূলত তিন ধরনের কম্পিটিটর দেখতে পাবেন-

ডিরেক্ট কম্পিটিটর-

একজন ডিরেক্ট কম্পিটিটর সেইম কাস্টমার কে লক্ষ্য করে সেইম প্রফিট এবং মার্কেট গ্রোথ এর জন্য সেইম প্রোডাক্ট আর সার্ভিস অফার করে থাকে। এর মানে হলো ডিরেক্ট কম্পিটিটর আপনার মতো সেইম অডিয়েন্স টর্গেট করে, আপনার মতো সেইম প্রোডাক্ট সেল করে। 

ইনডিরেক্ট কম্পিটিটর –

ইনডিরেক্ট কম্পিটিটর

ইনডিরেক্ট কম্পিটিটর হলো আরেকটি কোম্পানি যেটি সেইম প্রোডাক্ট এবং সার্ভিস দিয়ে থাকে। অনেকটা ডিরেক্ট কম্পিটিটর এর মতো। তবে তাদের শেষ লক্ষ্য ভিন্ন থাকে।

Substitute কম্পিটিটর –

অন্য একটি কোম্পানি আপনার গ্রাহকদের একটি প্রোডাক্ট বা সার্ভিস অফার করছে যা আপনিও প্রদান করেন।

এখন, আপনি কোন ধরনের প্রতিযোগীদের সাথে নিজেকে তুলনা করতে চান তা বিবেচনা করা হয়ে গেলে, নিজেকে কীভাবে দাঁড় করাবেন সেটা বোঝা গুরুত্বপূর্ণ। এটিই অ্যানালাইসিস এর নেক্সট পার্ট। 

Don't wait!
Get the expert business advice You need in 2022

It's all include in our newsletter!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More To Explore
ফেইসবুক অ্যাডভার্টাইজিংয়ের মাধ্যমে গ্লোবালি প্রোডাক্ট সেল করুন
Marketing

ফেইসবুক অ্যাডভার্টাইজিংয়ের মাধ্যমে গ্লোবালি প্রোডাক্ট সেল করুন

আপনার লোকাল বিজনেসটিকে আরো অ্যাডভান্স করতে, গ্লোবালি প্রোডাক্ট সেল করা একটা গেম-চেঞ্জার হতে পারে এবং ফেসবুক অ্যাডভার্টাইজিং কিন্তু এই পরিবর্তনের একটা গুরুত্বপূর্ণ হাতিয়ার। বিশ্বব্যাপী ২.৮ বিলিয়ন

অনলাইন ক্লায়েন্টের সাথে স্ট্রং রিলেশনশিপ বিল্ডআপ করার টিপস
Marketing

অনলাইন ক্লায়েন্টের সাথে স্ট্রং রিলেশনশিপ বিল্ডআপ করার টিপস

আপনি কি সবচেয়ে সাশ্রয়ী ও সাস্টেইনেবল ওয়েতে আপনার ব্যবসার সেল বা আরো বেশি কাজের বাইয়ার বাড়াতে চান? তাহলে প্রথমেই আপনার নজর দিতে হবে আপনার ক্লায়েন্টের