০৫ হাজারেরও বেশি শিক্ষার্থীকে স্কীলড করেছে ই-লার্নিং প্লাটফর্ম – উই মেইক প্রো

উই মেইক প্রো

Share This Post

Share on facebook
Share on linkedin
Share on twitter
Share on email

বাংলাদেশে ডিজিটাল ইন্ডাস্ট্রি কিছুদিন আগেও এতটা জনপ্রিয় ছিল না। সবাই ট্রেডিশন্যাল আয় করার পদ্ধতিকেই কার্যকর পদ্ধতি বলে মনে করতেন। একটি সময় ছিল যখন অনলাইন ভিত্তিক আয়কে ভিন্ন নজরে দেখা হতো। কিন্তু এখন ইন্ডাস্ট্রিতেও পরিবর্তন আসার পর আয় করার পদ্ধতিতেও পরিবর্তন এসেছে। 

ডিজিটাল ইন্ডাস্ট্রিকে আরো একধাপ এগিয়ে নিতে নতুন মাত্রা যোগ করেছে ই-লার্নিং প্লাটফর্মগুলো। বাংলাদেশে বিগত কয়েক বছরে বেশ কিছু প্লাটফর্ম সাফল্যের সাথে কাজ যাচ্ছে ই-লার্নিং ইন্ডাস্ট্রিতে। তেমনি একটি জনপ্রিয় প্লাটফর্ম উই মেইক প্রো। আজকের আমরা কথা বলবো এডুটেক প্লাটফর্ম ওইমেকপ্রো সম্পর্কে। বিশেষ করে করোনা মহামারী আসার পর থেকে মানুষ অনলাইন ভিত্তিক আয়ের দিকে বেশি ঝুকে পড়েছে। ধারনা করা হচ্ছে যে ২০২৬ সাল নাগাদ গ্লোবাল ডিজিটাল ইন্ডাস্ট্রির ভ্যালু দাড়াবে প্রায় ৩৯৮.১৫ বিলিয়ন ডলার ইউএসডি। আর এটাই প্রমান করে যে, ডিজিটাল ইন্ডাস্ট্রি কতটা দ্রুত পরিবর্তন হতে চলেছে। 

ডিজিটাল ইন্ডাস্ট্রিকে আরো সমৃদ্ধ করতে ই-লার্নিং এর বিকল্প নেই। ই-লার্নিং বেশি জনপ্রিয় হবার কারণ হচ্ছে এডুকেশন ডেলীভারী মেথডে ব্যাপক পরিবর্তন নিয়ে আসার কারণে। ট্রেডিশন্যালি এডুকেশন মেথডে কোন টপিক সম্পর্কে জানতে হলে আপনাকে তা একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হতো যেমনঃ (কোচিং সেন্টার বা প্রাইভেট টিউটর)। 

অন্যদিকে ই-লার্নিং এডুকেশন মেথডে আপনার স্কিল গ্যাপিংকে টার্গেট করে মাইক্রো কোর্স প্রোভাইড করে থাকে যা আপনাকে স্পেসিফিক টার্গেটের উপর আরো বেশি প্রফেশনাল করে তোলে। এছাড়াও ট্রেডিশন্যাল ফরমেট এডুকেশন এ দীর্ঘ সময় পর্যন্ত ডিগ্রী, সেমিস্টার, ক্লাস করতে সময় দিতে হয় যা খুবই সময় সাপেক্ষ। তাই ধীরে ধীরে এডটেক বা ই-লার্নিং একটি পপুলার মার্কেটে কনভার্ট হতে চলেছে। “গবেষনায় দেখা গিয়েছে যে, ৪৮% অনলাইন বা রিমোট স্টুডেন্ট ক্যারিয়ারে প্রতি বেশি ফোকাস থাকে।”

আবার “৯৩% স্টুডেন্ট অনলাইন এডুকেশনকে একটি পজিটিভ ইনভেস্টমেন্ট হিসেবে মনে করে” এবং যার মধ্য “৭৪% স্টুডেন্ট মনে করে থাকে যে অনলাইন এডুকেশন সিস্টেম ট্রেডিশনাল সিস্টেম থেকে বেশি কার্যকর” 

আমাদের পাশ্ববর্তী দেশ ভারতের এডুটেক প্লাটফর্ম বাইজু। আপনি জানেন কিনা বিশ্বের মোস্ট ভ্যালুয়েবল এডটেক প্লাটফর্মগুলোর একটি বাইজু, যার  কোম্পানি ভ্যালুয়েশন প্রায় ১৬ বিলিয়ন ডলার, ২০১৯ – ২০ অর্থবছরে তাদের আয় ২,৪৩৪ কোটি রুপি , যা আগের অর্থবছরের তুলনায় ৮১ শতাংশ বেশি তাহলে বুঝতেই পারছেন এডুটেক ইন্ডাস্ট্রিতে ই-লার্নিং প্লাটফর্মগুলো কতটুকু অবস্থান তৈরি করছে। 

“একজন স্টুডেন্টের সবচাইতে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে অনলাইন এডুকেশনে বা প্ল্যাটফর্মে এমন একটি প্রোগাম খুঁজে বের করা যা তার প্রয়োজনীয়তা ও চাহিদাকে নিখুঁতভাবে পূরন করবে। উইমেকপ্রো এমন একটি প্ল্যাটফর্ম যা একজন স্টুডেন্টকে ই-লার্নি এডুকেশন উপর বেইজড করে ডিজিটাল ইন্ডাস্ট্রিতে স্কিল্ডফুল হিসেবে গড়ে তোলে। এডুকেশন ডেলীভারী মেথডে উপর নির্ভর করে ২০১৯ সাল থেকে নিউ লার্নারদের ডিজিটাল ইন্ডাস্ট্রিতে দক্ষভাবে টিকে থাকার কৌশল শিখিয়ে আসছে এই জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্মটি । 

এস. এম. বেলাল ও নাহিদ হাসানের সূত্র ধরেই মূলত উইমেকপ্রোর যাত্রা শুরু। তারা তাদের নিজ নিজ মার্কেটে কাজ করতেন এবং কাজের সূত্রে তাদের পরিচয় হয়। সর্বপ্রথম উইমেকপ্রো নিয়ে ধারনা আনেন ২০১৮ সালের শেষ দিকে। ডিজিটাল ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে যখন তারা কাজ করতেন, তখন ফুল-টাইম প্রফেশন হিসেবে কেউ এই সেক্টরকে ইস্টাব্লিশড চোখে দেখতো না, যেটা আজকের দিনে খুবই জনপ্রিয়। তাই এস. এম. বেলাল ও নাহিদ হাসান তাদের সফলতাকে আরো ছড়িয়ে দিতে ডিজিটাল ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে অন্যদেরকে অনলাইনে শেখানোর বিষয়টি মাথায় আনেন।

উই মেইক প্রো

তারপর তাদের পরিকল্পনাকে বাস্তবে নিয়ে আসার পথ দিয়ে উইমেকপ্রো উত্থান হয় এবং তাদের যৌথ উদ্যোগে ২০১৯ সালে উইমেকপ্রো.ডট কম দিয়ে প্রথম কার্যক্রম শুরু করে। তাদের সর্বপ্রথম কোর্স ডিজিটাল মার্কেটিং ব্লু-প্রিন্ট দিয়ে উইমেকপ্রো কার্যক্রম শুরু করে। উইমেকপ্রো মূলত কোর্সের কোয়ালিটির উপর বেশী ফোকাসড যাতে করে  যেকোন একজন স্টুডেন্ট ডিজিটাল মার্কেটিং ইন্ডাস্ট্রিতে সফল হতে পারে। স্টুডেন্ট যেন সকল বিষয়ে ধারনা পেয়ে থাকে তাই প্রতিটি সাব্জেক্টকে আলাদাভাবে কভার করে হয়েছে, যাতে করে প্রয়োজনে দ্বিতীয়বার তাকে কোন কনফিউশনে পড়তে না হয়।

উইমেকপ্রো বর্তমানে এখন পর্যন্ত ১০+ এর অধিক কোর্স পাবলিশ করেছে, যার মাধ্যমে এ এখন পর্যন্ত ৫০০০ এরও বেশি শিক্ষার্থী কে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। উইমেকপ্রোর কোর্স প্যাটার্ন সম্পূর্ণ ডিজিটাল ইন্ডাস্ট্রির উপর ভিত্তি করে তৈরী করা একজন লার্নার থেকে এডভান্সড লেভেল পর্যন্ত নিয়ে যাওয়ার পথ পর্যন্ত সকল কার্যক্রম উইমেকপ্রোর কোর্সগুলোতে রয়েছে। 

ডিজিটাল ইন্ডাস্ট্রি রিলেটেড কোর্সগুলো যেমনঃ ফেসবুক এডস, সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজ, ইউটিউব মার্কেটিং, কনটেন্ট মার্কেটিং, ফ্রীল্যান্সিং গাইডলাইন, প্রিন্ট অন ডিমান্ড, গ্রাফিক্স ডিজাইন ইত্যাদি আরো নানা বিষয় নিয়ে উইমেকপ্রোতে কোর্স হিসেবে ফিচার করা হয়েছে। আমাদের বর্তমান ইন্ডাস্ট্রির কথা যদি ভেবে থাকি, সেই তুলনায় ভবিষ্যৎতে আমাদের আরো পরিবর্তন আসবে প্রতিটি ইন্ডাস্ট্রির মধ্য, উইমেকপ্রো সেই দিক থেকেও বেশ এগিয়ে। প্রতিটি লার্নারদের ফলো আপে রাখবার জন্য উইমেকপ্রো টিম রয়েছে যারা তাদের ২৪ ঘণ্টা সাপোর্ট দিয়ে আসছে। যারা কোর্স সম্পর্কিত সকল প্রশ্নের উত্তর, ল্যার্নারদের ক্যরিয়ার নিয়ে কনসালটেন্সি সাপোর্ট ইত্যাদি উইমেকপ্রো থেকে কভার করে থাকে। 

উইমেকপ্রো ডিজিটাল ইন্ডাস্ট্রির উপর নির্ভর করে যেহেতু কাজে করে যাচ্ছে তাই তাদের ভিশন শুধু মার্কেটপ্লেসগুলো নাহ। উইমেকপ্রো প্রতিটি লার্নারদের কথা মাথায় রেখে তারা ভবিষ্যতে আরো ভিন্ন ভিন্ন টপিকে কভার করতে চলেছে। মহিলা উদ্যোক্তা তৈরী করতে যাবতীয় প্রোগ্রাম, ডান্স, ম্যাজিক ট্রিক্স, মিউজিক ইত্যাদি একজন স্টুডেন্ট যেন প্ল্যাটফর্ম থেকে তার প্রয়োজনমতো স্কিল ডেভেলপ করতে পারেন সেই উদ্যোগে কাজে করে যাচ্ছে উইমেকপ্রো। 

তাছাড়া উইমেকপ্রো সোশ্যাল ইনফিলুয়েন্সিং এর জন্য কাজ করে যাচ্ছে। উইমেকপ্রো একজন স্টুডেন্ট কীভাবে তাদের ফিউচার নিয়ে কাজ করতে পারেন, কীভাবে ক্যারিয়ার ডেভেলপ করতে পারেন, কোন কাজটি তাদের জন্য সঠিক ইত্যাদি একজন মানুষের স্কিল ডেভেলপ করতে ইভেন্ট অর্গানাইজ করে থাকে। ইভেন্টের মাধ্যমে একজন লার্নারকে কারেক্ট ট্র্যাকে নিয়ে আসাই ইভেন্টের মূল লক্ষ্য। 

Subscribe To Our Newsletter

Get updates and learn from the best

More To Explore

Jatri
Startup Story

বাংলাদেশী প্রথম ডিজিটাল বাস ট্র্যাকিং এবং টিকিটিং প্লাটফর্ম ‘ যাত্রী ‘

প্রায় ৪৭ শতাংশ যাত্রী প্রতিদিন বাসে যাতায়াত করে। অনির্ধারিত বাস, দীর্ঘ সারি ধরে বাসের জন্য দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করা এবং লাইন ধরে বাসের টিকেট কাটা এবং