বাংলাদেশী জনপ্রিয় অনলাইন ট্রাভেল সল্যুশন প্লাটফর্ম “গো জায়ান “

অনলাইন ট্রাভেল সল্যুশন

Share This Post

Share on facebook
Share on linkedin
Share on twitter
Share on email

ভ্রমণ হোক দেশে কিংবা বিদেশে – অবসর সময় কিংবা কাজের জন্য সবক্ষেত্রেই ভ্রমণ সবারi পছন্দ। খুবই কম সংখ্যক মানুষ পাওয়া যাবে যারা ভ্রমন পছন্দ করেনা। নিজের গতানুগতিক পরিবেশ থেকে অন্য একটি পরিবেশে গেলে একঘেয়েমি দূর হয়  যেমন , আবার তেমনি মনও  সতেজ হয়। 

কিন্তু যখন ট্রাভেল করতে যাবো তখন অনেকগুলো সমস্যা আমরা ফেস করে থাকি। তার মধ্যে সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো টিকেট বুকিং এবং হোটেল বুকিং করা , যা খুবই সময় সাপেক্ষ। কিন্তু প্রযুক্তির কল্যানে যা আমরা এখন খুব সহজেই করতে পারছি বিগত বেশ কয়েক বছর ধরে। বাংলাদেশী ট্রাভেল টেক প্লাটফর্ম গুলোএই সুবিধাটি বেশ দারুন ভাবে দিয়ে আসছে এর মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় অনলাইন ট্রাভেল সল্যুশন “গো জায়ান “, যারা নিজেদের অনলাইন ট্রাভেল এজেন্সী হিসেবে পরিচিত করে আসছে। সময়ের সাথে সাথে নিজেদের আরো অনেক আপডেট করে চলছে। 

গো জায়ান, একটি বাংলাদেশী অনলাইন ওয়ান স্টপ ট্রাভেল সল্যুশন। আপনার ভ্রমনের টিকিট বুকিং হতে শুরু করে আপনার হোটেল এর রুম বুক করা পর্যন্ত সকল ধরনের সার্ভিস সুবিধা দিয়ে আসছে এই প্লাটফর্মটি। 

গো জায়ান মূলত এয়ার টিকিটিং সার্ভিস কে টার্গেট করে তাদের যাত্রা শুরু করেছিল। তাদের মূল সার্ভিস ছিলো অভ্যন্তরীণ এবং আন্তর্জাতিক বিমান টিকেট সুবিধা প্রোভাইড করা । কিন্তু পরবর্তিতে তারা তাদের ক্লাইন্ট দের ভিসা প্রসেসিং  এবং হোটেল বুকিং দিতে সহযোগিতা করে আসছে এবং পাশাপাশি অফার, ডিসকাউন্ট এবং কুপন সুবিধা প্রোভাইড করে সহযোগিতা করে আসছে বাংলাদেশী ভ্রমণ প্রিয় মানুষদের। 

অনলাইন ট্রাভেল সল্যুশন

গো জায়ান এর ওয়েবসাইটে এর মাদ্ধমে ফ্লাইট, হোটেল, বাস, ভিসা , ট্রাভেল লোন এই সার্ভিস গুলো অনায়াসে উপভোগ করতে পারবে যে কেউ। খুব সহজেই আপনি আপনার পছন্দ অনুযায়ী সিটি, হোটেল, এরিয়া সিলেক্ট করে দিতে পারবেন। এবং আপনি চেক ইন কবে করবেন, চেক আউট কবে করবেন, কয়টা রুম লাগবে কয়জন থাকবেন সকল কিছু আপনি আপনার পছন্দ মত সেট  করে নিতে পারবেন খুব সহজে। 

বাস সুবিধার জন্যে আপনি আরো দেখতে পারবেন ওয়েব এর মাধ্যমে কোন বাস এ কয়টা সিট খালি আছে এবং কোন কোন সময়ে আপনার  আপনার পছন্দনীয় বাসটি এভেইলএবল আছে। এছাড়াও এই জনপ্রিয় প্লাটফর্মটি বিভিন্ন ট্রাভেল করার পিক সময়কে টার্গেট করে বিভিন্ন টুর প্ল্যান শেয়ার করে এবং হোস্ট করে থাকে। 

যাতে যে কারো পক্ষে দারুণভাবে আপনি বাংলাদেশী বিভিন্ন প্লেস কভার করাটাও অনেক বেশি সহজ হয় , গো জায়ানের সবচেয়ে ভালুয়েবল বিষয়টি হলো এখানে প্রাইজ রেঞ্জ উল্লেখ করে করে দেয়া থাকে যার মাধ্যমে আপনি আপনার নাগালের বাজেট অনুসারে প্যাকেজ সেট করতে পারবেন। আপনার জন্য উপযুক্ত প্যকেজটি আপনি কাস্টমাইজ করে করে দেখতে পারবেন। এই পুরো প্রসেসটি খুবই সহজ এবং কয়েক মিনিটের মধ্যে তাদের ওয়েবসাইট এর মাদ্ধমে .

এছাড়া এই প্লাটফর্মটি বাংলাদেশ এর বিভিন্ন ট্রাভেল হোস্ট প্লাটফর্ম, ট্রাভেল বেসড ব্লগার এবং রিসোর্টগুলোর সাথেও যৌথ ক্যাম্পেইন এর মাদ্ধমে গ্রাহকদের বিভিন্ন অফার প্যাকেজ প্রোভাইড করে থাকে। অনলাইনে ট্রাভেল সার্ভিস আরও জনপ্রিয় করতে গো জায়ান স্থানীয় এয়ারলাইন্স, আন্ত -নগর বাস ফার্ম, হোটেল এবং ট্যুর অপারেটরদের সাথে দারুণভাবে কাজ করে আসছে। 

মহামারী চলাকালীন, পর্যটন ইন্ডাস্ট্রি অনেকটা স্থবির হওয়ার কারণে, গো জায়ান লোকাল পর্যটনের দিকে মনোনিবেশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এবং গত ১২ মাসে ৫ গুন বেশি ডেভেলপমেন্ট করার গৌরব অর্জন করেছে প্লাটফর্মটি।

এই জনপ্রিয় প্লাটফর্মটি ফাউন্ডার এবং সিইও  রিদওয়ান হাফিজ, যিনি বুয়েট থেকে ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করা একজন তরুন । তার পুরো পরিবার থাকেন আমেরিকাতে। পরিকল্পনা ছিলো তিনিও চলে যাবেন। কিন্তু একসময় তিনি অনুভব করলো দেশ থেকে পড়াশোনা করে বাহিরে চলে গেলে তো দেশের জন্য কিছু করা হলো না। তিনি চেয়েছিলেন দেশের জন্য কিছু করতে। 

অনলাইন ট্রাভেল সল্যুশন

Tokhon বিশ্বব্যাপী খুব জনপ্রিয় হয়ে পড়েছিল ট্রাভেল-টেকপ্লাটফর্মগুলো।  ভ্রমণ প্রিয় মানুষ এবং তরুন প্রজন্ম খুবই আগ্রহে অপেক্ষা করছিলেন একটি অনলাইন সমাধান পাওয়ার জন্য। সময়মতো তাদের আগ্রহের সমাপ্তি ঘটিয়েই এলো, বাংলাদেশী অনলাইন ট্রাভেল সল্যুশন গো জায়ান। রিদওয়ান হাফিজ ২০১৭ সালের ১০ আগষ্ট গো জায়ান প্রতিষ্ঠা করেন। ২০১৭ সালে গড়ে উঠা এই ট্রাভেল টেক প্লাটফর্মটি এখন বাংলাদেশী মানুষের বেশ আস্থার জায়গা অর্জন করে নিয়েছে। 

গো জায়ান এর সর্বোচ্চ চ্যালেঞ্জ ছিলো ট্রেডিশনাল কাস্টমারদের টেকনলোজি প্লাটফর্মে নিয়ে আসা।  প্রথম দিকে তাদের আরেকটি চ্যলেঞ্জ ছিলো গো জায়ান এর সার্ভিস নিতে হলে ক্রেডিট কার্দের প্রয়োজন ছিলো। কিন্তু এখন আর শুধু মাত্র ক্রেডিট কার্দে সীমাবদ্ধ নেই। এখন আপনি  ব্র্যাক, সিটি এমেক্স , ঢাকা ব্যাঙ্ক, ইবিএল , লংকাবাংলা , স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড, বিকাশ, নগদ যেকোনো উপায়ে পে করতে পারবেন। বর্তমানে ঢাকার অভিজাত এরিয়া গুলশান ০ এ তাদের কর্পোরেট অফিস পরিচালনার পাশাপাশি লিঙ্কেডিন এ দেয়া তথ্য অনুসারে তাদের এমপ্লয়ী সংখ্যা ৫০ জনের বেশি। 

রিসেন্টলি গো জায়ান প্রথমবারের মতো তাদের ফান্ডিং কালেক্ট করেছে। গ্লোবাল ইনভেস্টমেন্ট প্লাটফর্ম ওয়েভমেকার পার্টনার্সের নেতৃত্বে একটি সীড রাউন্ডে ২.৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সংগ্রহ করেছে এই ট্রাভেল টেক প্লাটফর্মটি। 

এই রাউন্ডে এসইএ-ফোকাসড ভিসি, 1982 ভেঞ্চারস এবং ইটারেটিভ, এবং এয়ারবিএনবি চায়না এর মতো ফার্মগুলো অংশগ্রহণ করেছিলেন , প্রাথমিকভাবে বাংলাদেশের মার্কেট এ ফোকাস করে, গো জায়ান তাদের ইউজের এক্সপিরিয়েন্সকে উন্নত করতে, নতুন ট্যালেন্ট আকর্ষণ করতে এবং তাদের কাস্টমার বেস এবং ট্রাভেল সার্ভিস নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণের জন্য নতুন ফান্ডিংটি ব্যবহার করার পরিকল্পনা করেছে।

এছাড়াও  ২০১৮ সালে বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ড এ ট্যুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ক্যাটাগরিতে চ্যাম্পিয়ন অ্যাওয়ার্ড পেয়েছিলেন গো জ্যায়ান।গো জায়ান আগামী ৫ বছরে ট্রাভেল নিয়ে মানুষের চিন্তাধারাকে চেঞ্জ করার প্রত্যয় নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশে সমুদ্র আছে, পাহাড় আছে প্রত্যেকটি জিনিস থাকা সত্ত্বেও খুব সংখ্যক বিদেশী টুরিস্টরা বাংলাদেশে ভ্রমণ করতে আসে । বাংলাদেশি ট্রভেল ইন্ডাস্ট্রি এর  সম্পূর্ণ ইকো সিস্টেম পরিবর্তন করতে চায় গো জায়ান। 

গো জায়ান তাদের বাংলাদেশের একটি জনপ্রিয় বড় ব্র্যান্ড হিসেবে গড়েতুলতে চায় যেটি কিনা বাংলাদেশ ছড়িয়ে বা দেশের গন্ডি পেরিয়ে গ্লোবালি মুভ করবে । বাংলাদেশকে শিল্পকে সমৃদ্ধির পথে আরো একধাপ নিয়ে যেতে চায় এই জনপ্রিয় অনলাইন ট্রাভেল সল্যুশন প্লাটফর্ম গো জ্যায়ান।

Subscribe To Our Newsletter

Get updates and learn from the best

More To Explore

Jatri
Startup Story

বাংলাদেশী প্রথম ডিজিটাল বাস ট্র্যাকিং এবং টিকিটিং প্লাটফর্ম ‘ যাত্রী ‘

প্রায় ৪৭ শতাংশ যাত্রী প্রতিদিন বাসে যাতায়াত করে। অনির্ধারিত বাস, দীর্ঘ সারি ধরে বাসের জন্য দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করা এবং লাইন ধরে বাসের টিকেট কাটা এবং