স্মল বিজনেসের জন্যে কম বাজেটে ১০টি ফেসবুক মার্কেটিং টিপস

কম বাজেটে স্মল বিজনেসের জন্যে ১০টি ফেসবুক মার্কেটিং টিপস
Share This Post

আজকের ডিজিটাল যুগে, Facebook-এর মতো সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলি কম বাজেট এর ব্যবসায়ীদের জন্য দারুণ অপশন। টার্গেটেড দর্শকদের কাছে পৌঁছানোর এবং তাদের বৃদ্ধির জন্য এটি একটি অপরিহার্য হাতিয়ার। যাইহোক, এমন অনেক ছোট ব্যবসা আছে যারা প্রায়ই কম বাজেটের সাথে শুরু করে আর  বিগ বাজেটের বিজনেস গুলোর সাথে পাল্লা দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে।

সৌভাগ্যবশত, Facebook এইসব বিজনেসকে তাদের প্রোডাক্ট ও সার্ভিস প্রচারের জন্য সাশ্রয়ী সব সুযোগ প্রদান করে। আজ আমরা দশটি ইউজফুল এবং বাজেট-ফ্রেন্ডলি ফেসবুক মার্কেটিং টিপস আলোচনা করব যা ছোট ব্যবসাগুলিকে তাদের অনলাইন প্রেজেন্টেশন বাড়াতে এবং সম্ভাব্য গ্রাহকদের আকৃষ্ট করতে বেশ সাহায্য করবে –

কম বাজেটে বিজনেস করার জন্যে ১০ টি ফেসবুক মার্কেটিং টিপস 

এখানে এমন কিছু টপ নচ আইডিয়া শেয়ার করবো যেগুলো আপনার স্মল বিজনেসকে আরো সফল হতে সাহায্য করবে। 

একটি ইন্টারেস্টিং ফেসবুক বিজনেস পোজ তৈরি করুন :

একটি সফল ফেসবুক মার্কেটিং ক্যাম্পেইনের প্রথম ধাপ হল একটি আকর্ষণীয় ব্যবসায়িক পেজ তৈরি করা। হাই কোয়ালিটি  ছবি, একটি ইন্টারেস্টিং কভার ফটো এবং একটি সংক্ষিপ্ত অথচ আকর্ষক ডেসক্রিপশন ব্যবহার করুন যা স্পষ্টভাবে আপনার ব্যবসার মেইন টার্গেট কে সুন্দর ভাবে ব্যাখ্যা করে। 

আপনার ওয়েবসাইট, ফোন নম্বর এবং ইমেল ঠিকানা সহ সমস্ত প্রাসঙ্গিক যোগাযোগের বিস্তারিত স্পষ্টভাবে প্রদর্শিত করে এমন একটি পেজ তৈরি করুন৷ উপরন্তু, আপনার ব্যবসার নাম রিপ্রেজেন্ট করতে আপনার পৃষ্ঠার URL কাস্টমাইজ করার কথাও বিবেচনা করতে পারেন। একটি আকর্ষণীয় এবং সুসংগঠিত ফেসবুক পেজ আপনার অনলাইন প্রেজেন্টেশন তৈরি করার জন্য একটি শক্তিশালী ভিত্তি হিসাবে কাজ করবে।

আপনার টার্গেটেড অডিয়েন্স নিশ্চিত করুন :

আপনার Facebook বিজনেস টি অপ্টিমাইজ করার জন্য, আপনার টার্গেটেড দর্শকদের সনাক্ত করা এবং বোঝা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আপনার বিদ্যমান গ্রাহকদের এবং তাদের জনসংখ্যা সম্পর্কে ইনসাইট পেতে Facebook ইনসাইট বা অন্যান্য এনালাইসিস টুলস ব্যবহার করুন৷ 

বয়স, লিঙ্গ, অবস্থান এবং আপনার ব্যবসার অফারগুলির সাথে আরো রিলেটেড বিষয়গুলি নির্ধারণ করুন। এই তথ্য গুলো আপনাকে আপনার টার্গেটেড পণ্য  এবং বিজ্ঞাপনগুলি তৈরি করতে সাহায্য করবে যা আপনার দর্শকদের সাথে এনগেজড হতেও সাহায্য করবে। যার ফলে উচ্চ ট্রাফিক অটোমেটিকালি বাড়বে। 

মানসম্পন্ন সামগ্রী দিয়ে আপনার ক্রেতাদের আকৃষ্ট করুন:

আপনার অডিয়েন্স কে এনগেজড  রাখতে, ধারাবাহিকভাবে আপনার Facebook পৃষ্ঠায় মূল্যবান এবং ইন্টারেস্টিং বিষয়বস্তু প্রকাশ করুন। আপনার কাজের সাথে সম্পর্কিত তথ্যমূলক আর্টিকেল, টিপস, ভিডিও এবং ইনফোগ্রাফিক্স শেয়ার করুন। প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করে, পোল চালানোর মাধ্যমে এবং কমেন্ট এবং মেসেজের অবিলম্বে রেসপন্স জানিয়ে দর্শকদের ইন্টারেকশন কে আরো  উৎসাহিত করুন। 

দর্শকের সামঞ্জস্যতা গুরুত্বপূর্ণ, তাই নিয়মিত পোস্টের রিচ নিশ্চিত করতে একটি টপিক ক্যালেন্ডার তৈরি করুন। মনে রাখবেন, আপনার বিষয়বস্তু যত বেশি আকর্ষক এবং শেয়ারযোগ্য হবে, আপনার বিজনেস এর নাগাল ততই বিস্তৃত হবে। আর আপনাকে অতিরিক্ত খরচ ছাড়াই এক্সপোজার পেতে সাহায্য করবে।

ফেসবুক বিজ্ঞাপন ব্যবহার করুন 

Facebook বিজ্ঞাপনগুলি আপনার সব ফলোয়ার দের  ছাড়িয়ে আরো বৃহত্তর অডিয়েন্স এর কাছে পৌঁছানোর একটি সাশ্রয়ী উপায় বলে আমার মনে হয়। নির্দিষ্ট জনসংখ্যা, ইন্টারেস্ট এবং আচরণের উপর ভিত্তি করে আপনার শ্রোতাদের শর্টলিস্ট করতে প্ল্যাটফর্মের শক্তিশালী টার্গেটিং অপশন গুলে ব্যবহার করুন। 

আপনার ব্যবসার জন্য কোনটি সবচেয়ে ভালো কাজ করে তা খুঁজে বের করতে বিভিন্ন বিজ্ঞাপন ফর্ম্যাট, যেমন ইমেজ বিজ্ঞাপন, ভিডিও বিজ্ঞাপন বা ক্যারোজেল বিজ্ঞাপনের সাথে কম্পেয়ার করুন। একটি রেগুলার বা লাইফটাইম বাজেট সেট করুন যা আপনার আর্থিক সামর্থ্যের সাথে সামঞ্জস্য করে এবং তাদের কর্মক্ষমতা অপ্টিমাইজ করতে সাহায্য করবে।  

কন্ট্রিবিউটারদের  ক্রেডিট দিয়ে আপনার Facebook পেজ এ এই সামগ্রীটি পুনরায় পোস্ট করুন এবং পাবলিশ করুন৷ কারণ UGC সোশ্যাল ভ্যালিডিটি প্রদান করে এবং সম্ভাব্য গ্রাহকদের জন্য একটি প্রশংসাপত্র হিসাবে কাজ করে। এভাবে আপনার ব্র্যান্ড এবং এর ফলোয়ার দের মধ্যে বন্ধনকে শক্তিশালী করতে পারেন।

প্রতিযোগিতা এবং গিভাওয়ে

প্রতিযোগীতা এবং গিভওয়ে আপনার বিজনেস এ  এনগেজমেন্ট বাড়াতে এবং আপনার Facebook ফলোয়ার বাড়াতে একটি কার্যকর উপায়৷ তাই সহজ এবং মজাদার প্রতিযোগিতার আয়োজন করুন যাতে অংশগ্রহণকারীদের একটি পুরস্কার জেতার সুযোগের জন্য আপনার পোস্ট লাইক, মন্তব্য বা শেয়ার করতে হয়। 

এই কৌশলটি শুধুমাত্র আপনার পেইজের ভিজিবিলিটি বাড়ায় না বরং ইউজারদের অংশগ্রহণকে উৎসাহিত করে এবং শেয়ারের মাধ্যমে আপনার বিজনেসের নাগাল কে প্রসারিত করে। প্রকৃত এবং সম্ভাব্য গ্রাহকদের আকৃষ্ট করতে আপনার টার্গেটেড দর্শকদের জন্য  বিভিন্ন পুরস্কারের ব্যাবস্থা করুন। 

ইন্ফ্লুয়েন্সারদের সাথে কন্ট্র্যাক্ট করুন 

ইনফ্লুয়েন্সার মার্কেটিং ছোট ব্যবসার জন্য একটি জনপ্রিয় এবং সাশ্রয়ী মেথড। তাই প্রথমেই আপনার বাজেটের মধ্যে মধ্যে ইন্ফ্লুয়েন্সার বা মাইক্রো-ইনফ্লুয়েন্সার দের সনাক্ত করুন যারা কাজ করতে আগ্রহী । এখন ইনফ্লুয়েন্সার মার্কেটিং একটি জনপ্রিয় এবং সাশ্রয়ী উপায়ে পরিণত হয়েছে। কম বাজেট এ বৃহত্তর শ্রোতাদের কাছে পৌঁছানোর জন্য একটি দারুন মাধম বলা চলে।  

বিশেষ করে যারা আপনার ব্র্যান্ডের প্রোডাক্টের  সাথে রিলেটেড এবং Facebook-এ যাদের যথেষ্ট ফলোয়ার রয়েছে তাদের কে টার্গেট করুন।  সম্ভাব্য সহযোগিতার জন্য তাদের সাথে যোগাযোগ করুন, যেমন স্পনসর করা পোস্ট বা পণ্য পর্যালোচনা। প্রভাবশালীরা আপনার ব্র্যান্ডের রিচ বড় করতে এবং নতুন ফলোয়ারদের আকৃষ্ট করতে সাহায্য করতে পারে। 

সামঞ্জস্যপূর্ণ পোস্টিং রুটিন

একটি একটিভ এবং এনগেজিং ফেসবুক পেজ বজায় রাখার জন্য ধারাবাহিকতা হল চাবিকাঠি। তাই একটি টপিক ক্যালেন্ডার তৈরি করুন এবং একটি নিয়মিত পোস্টিং রুটিনের সাথে লেগে থাকুন। যাতে আপনার ফলোয়ার রা জানেন কখন আপনার কাছ থেকে নতুন আপডেট পাওয়া যাবে৷ আপনার ফলোয়ারদের আগ্রহী এবং কানেক্টেড রাখতে তথ্যপূর্ণ, বিনোদনমূলক এবং প্রচারমূলক পোস্টের ব্যাবহার করুন।

ছবি, ভিডিও, পোল এবং ইনফোগ্রাফিকের মতো বিভিন্ন ধরনের বিষয়বস্তু নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করুন। এরপর যাচাই করুন কোনটি আপনার দর্শকদের কাছে সবচেয়ে ভালো লেগেছে। সে অনুযায়ী রেগুলার পোস্ট করুন । 

ফেইসবুক গ্রুপ লিভারেজ

Facebook গ্রুপ গুলো আপনার ব্র্যান্ডের রিচ বাড়ায় এবং ক্লায়েন্ট দের সাথো আরো বেশি এনগেজড হতেও সাহায্য করে। এখানে আপনি আপনার গ্রুপ মেম্বারদের সাথে যত ক্লোকলজ রিলেশনশিপ তৈরি করতে পারবেন, প্রোফেশনালি তত বেশি হেল্প পাবেন। কারণ নিয়মিত গ্রুপে বিজনেস আপডেট দিলে মেম্বার রা আপনাকে তুলনামূলক বেশি ট্রাস্টেড মনে করবে। 

তাই একটি পরিচিত বিজনেজ ফেস পেতে একটি অর্গানাইজড ফেসবুক গ্রুপ রাখুন। দক্ষ মডারেটর ও এডমিনের মাধ্যমে গ্রুপে অডিয়েন্স ইনভলভমেন্ট বাড়ান। 

আপনার ফলোয়ারদের সাথে কানেক্টেড থাকুন। 

যেকোন সফল ফেসবুক মার্কেটিং কৌশলের জন্য ট্রাফিক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই ইতিবাচক এবং নেতিবাচক উভয়ই মন্তব্য, মেসেজ এবং ক্রিটিসিজম সাথে সাথে রেসপন্স জানান। ইতিবাচক প্রতিক্রিয়ার জন্য কৃতজ্ঞতা দেখান এবং পেশাদারিত্বের সাথে এবং সমস্যাগুলি সমাধান করার জন্য কোনও নেতিবাচক মন্তব্যের সমাধান করুন। আপনার শ্রোতাদের সাথে যুক্ত হওয়া আপনার ব্র্যান্ডকে আরো বেশি রিচ করে তোলে এবং আস্থা তৈরি করে। এমন অনুগত গ্রাহকদের উত্সাহিত করে যারা অন্যদের কাছে আপনার ব্যবসার সুপারিশ করবে বা করার সম্ভাবনা বেশি।

Don't wait!
Get the expert business advice You need in 2022

It's all include in our newsletter!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More To Explore
কাস্টমার সার্ভিস স্কিলস ইম্প্রোভ করার ৭টি টিপস
Marketing

কাস্টমার সার্ভিস স্কিলস ইম্প্রোভ করার ৭টি টিপস

কাস্টমার সার্ভিস হল বিজনেস সুদুরপ্রসারি করার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ স্টেপ। কাস্টমারই আপনার বিজনেস এর লক্ষ্য, আপনার প্রোফিট এর উৎস। তাই কাস্টমার সন্তুষ্ট করতে, একটা ওয়েল স্ট্র্যাকচারড

মার্কেটিং এর জন্য টুইটার অ্যালগরিদম কিভাবে ইউজ করবেন
Marketing

মার্কেটিং এর জন্য টুইটার অ্যালগরিদম কিভাবে ইউজ করবেন

আপনি কি টুইটারের মাধ্যমে এনগেজমেন্ট বাড়াতে এবং লিড তৈরি করতে চাইছেন? অথবা সম্ভবত আপনি আপনার ব্র্যান্ড রেপুটেশন বাড়াতে টুইটার অ্যালগরিদম নেভিগেট করাকে বেশ চ্যালেঞ্জিং মনে