বাংলাদেশী স্টার্টআপ “শাটল” এবং তার সফল পথচলা

Share This Post

Share on facebook
Share on linkedin
Share on twitter
Share on email

গণ পরিবহন সমস্যা শব্দটি শুনলেই এখন আমাদের প্রতিদিনের সীমাহীন দুর্ভোগ এর কথাই মাথায় আসে। আমাদের প্রতিদিনের পথচলায় এই অসহনীয় বিষয়টিকে আমরা আমাদের সাধারণ সমস্যায় রূপান্তরিত করে ফেলেছি। ট্রান্সপোর্টেশন প্রব্লেম বর্তমানে বাংলাদেশ এ একটি বিগেস্ট ফেসেস ইস্যু, স্পেশালি রাজধানী ঢাকায় অফিসগামী মানুষের প্রতিদিনের সমস্যা এটি। কর্মজীবী নারী বা মহিলাদের জন্য যেটি আরো বড় সমস্যা, শত মানুষের সাথে পাল্লা দিয়ে নিরাপদভাবে অফিস পৌঁছানো প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়ছে দিন দিন। উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাকের করা এক সমীক্ষায় দেখা গেছে বাংলাদেশের গণপরিবহনে যাতায়াতকারী ৯৪% নারী যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন।

এই সমস্যাগুলোর সমাধান নিয়ে ২০১৮ শুধুমাত্র মহিলাদের নিরাপদ গণ পরিবহণের অভাব ফুলফিল এবং সুবিধা প্রোভাইড করার লক্ষে তাদের যাত্রা শুরু করে “শাটল ফর উইমেন” সার্ভিসটি। খুব দ্রুতই কর্মজীবী নারী দের কাছে থেকে অভূতপূর্ব রেসপন্স পায় তারা তাদের রেমার্কেবল সার্ভিস দিয়ে প্রমান করার মাধ্যমে। “শাটল ফর উইমেন” নামে তাদের এই সাকসেসফুল প্রজেক্ট এ সেবার জন্য এখন পর্যন্ত ৩০০০০ এরও বেশি মহিলা রেজিস্ট্রেশন করেছেন এবং ১ মিলিয়নেরও বেশি সফল যাত্রা সম্পূর্ণ করেছে।শাটল বাংলাদেশ ভিত্তিক মাস ট্রানজিট স্টার্টআপ। এই স্টার্টআপ টির ফাউন্ডার রিয়াসাত চৌধুরী ,শাহ সুফিয়ান এবং জাওয়াদ জাহাঙ্গীর। 

ইউনিভার্সিটি থাকাকালীন তারা নিজেরাই বাংলাদেশ এ হাজারো সমস্যায় জর্জরিত গণপরিবহন ব্যবহার করতে ব্যক্তিগতভাবে কখনই স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করতেননা এবং খেয়াল করলেন অন্যান্য পরিবহণের বিকল্পগুলিও যা তারা পছন্দ করতেন সেগুলোও এতোটা সহজলভ্য নাহ। অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশের মতো আমাদের গণপরিবহন ব্যবস্থায় অটোমেশন বা সঠিক সিস্টেমের অভাব রয়েছে যেখানে ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার চাহিদা পূরণের জন্য মোট বাসের সংখ্যাও যথেষ্ট নয়। কর্মজীবী নারী বা মহিলাদের ক্ষেত্রে সমস্যাটি আরও মারাত্মক, কারণ গণপরিবহণে যৌন হয়রানি বাংলাদেশে প্রায় নিয়মিত ঘটনা।

তারা নিজেদের মধ্যে বাংলাদেশ এর পাবলিক ট্রান্সপোর্ট এর অসুবিধা নিয়ে আলোচনা করতে গিয়ে এবং তার সমাধান খুঁজতে গিয়েই তাদের এই যাত্রা মূলতো শুরু। পরে, সম্ভাব্য গ্রাহকদের সাথে কথা বলার পরে, তারা প্রাথমিক পর্যায়ে কেবলমাত্র কর্মজীবী নারী বা মহিলাদের এই সার্ভিস প্রোভাইড করার দিকে মনোনিবেশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ঠিক এই সিদ্ধান্তেই ২০১৮ সালে শুধুমাত্র “শাটল ফর উইমেন” নিয়ে তাদের যাত্রা শুরু হয়েছে। সেইফ এবং এফোর্ডেবল ট্রান্সপোর্টেশন সুবিধা নিয়ে শুধুমাত্র মহিলাদের জন্যে চালু হলেও বর্তমানে তারা তাদের সুবিধাগুলো এক্সপ্যান্ড করেছে। 

২০২০ সালে পেনডেমিক সিচুয়েশন এ লকডাউনকে গিরে গণপরিবহন সমস্যা আরো তীব্রতর হয়ে পড়ে। যার ট্রান্সপোর্ট সমস্যা সমাধানে “শাটল ” তাদের “শাটল ফর বিজনেস” অপারেশন শুরু করে। বিজনেস এবং উইমেন সেবার পাশাপাশি বর্তমানে তারা রেন্টাল সার্ভিসেও প্রোভাইড করে আসছে। 

লিংকডইন এ দেয়া তাদের তথ্য অনুযায়ী শাটল এর বর্তমান এমপ্লয়ি সংখ্যা ২০০+ এবং ঢাকার অভিজাত এলাকা গুলশান এর নিকেতন হাউজিং সোসাইটিতে তারা তাদের অফিস অপারেশন চালিয়ে আসছেন। বর্তমানে শাটল আফোর্ডেবল প্রাইস এ বোথ বিটুবি এবং বিটুসি কাস্টমার সার্ভিস প্রোভাইড করে আসছে। 

রিসেন্টলি এক্সেলেরেটিং এশিয়ার নেতৃত্বে, একটি সীড রাউন্ড এ ৭ লাখ ৫০ হাজার মার্কিন ডলার সংগ্রহ করেছে এই স্টার্টআপটি । রবি আজিয়াটা লিমিটেড (আর-ভেঞ্চার), ইমপ্যাক্ট কালেক্টিভ (দ্য ভেনচারস, দক্ষিণ কোরিয়া) এবং বাংলাদেশ অ্যাঞ্জেলস নেটওয়ার্ক (বিএএন) সহ এমন বেশ কয়েকজন লজিস্টিক ইন্ডাস্ট্রির দেশ-বিদেশের অ্যাঞ্জেল ইনভেস্টর বিশেষজ্ঞরা এই দলে অংশ নিয়েছিলেন।

এছাড়াও শাটল “বিনিয়োগ বৃদ্ধি” থেকে ১০০,০০০ ডলার পর্যন্ত ইমপ্যাক্ট রেডি ম্যাচিং ফান্ড প্রাপ্তির জন্যও সিলেক্ট হয়েছে – “বিনিয়োগ বৃদ্ধি” বাংলাদেশের টোটাল ইকোসিস্টেমকে ডেভেলপ করতে পারে এমন একটি ইমপ্যাক্ট বিজনেস প্রতিষ্ঠানের ইনক্রিজ এবং তাদের প্রভাবকে স্কেল করতে পারে তার জন্য বিনিয়োগ করে আশা একটি মাল্টি ইয়ার প্রোগ্রাম। এর আগে শাটল রবি আজিয়াটা লিমিটেডের একটি পৃ -সীড রাউন্ড এ তাদের বিজনেস মডেল উত্থাপন করেছিল এবং এখন পর্যন্ত এটি প্রায় ১ মিলিয়ন ডলারের কাছাকাছি দাঁড়িয়েছে। সাধারণত মিনিবাসগুলিতে ১০-১১ জন এর জন্য এই সার্ভিস প্রোভাইড করছেন তারা। যেখানে সেফ এবং স্যানিটাইজাড ওয়ে এর পাশাপাশি রাইড শেয়ারিং প্লাটফর্মগুলোর চার ভাগের এক ভাগ খরচ করেই এই সেবা উপভোগ করা সম্ভব হয় । শাটল এর মতে ২০১৮ সালে তাদের যাত্রা শুরু হওয়ার পর থেকে ৬ লক্ষ ২০ হাজার মার্কিন ডলারেরও বেশি রেভিনিউ আর্ন করেছে তারা এবং তাদের মান্থলি রাজস্ব বৃদ্ধির হার রিয়েছে ১৫%।

শাটল এর নির্দিষ্ট পিক-আপ এবং ড্রপ-অফ পয়েন্ট , এছাড়াও টার্গেটেড রুটে তারা খুব সুনিপুণ রাইড পরিচালনা করে আসছে । আপনি যেভাবে ফ্লাইট বুক করছেন ঠিক একই ভাবে শাটল এর গ্রাহকরা তাদের যাত্রায় বুকিং দেওয়ার জন্য অ্যাপে তাদের ট্রিপ শিডিউল এর সাথে সামঞ্জস্য রেখে তাদের পিক-আপ এবং ড্রপ-অফ পয়েন্ট চুজ করতে পারে। শাটল এর রয়েছে ক্রেডিট অপশন যা মোবাইল-ফোন রিচার্জের মতো কাজ করে যাতে ইউজাররা অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে শাটল ক্রেডিটস অনলাইনে কিনতে পারেন এবং তারপরে তাদের বিল পে করার জন্য এই অর্থ প্রদান করতে পারেন।

বিটুসি প্রজেক্ট তাদের ৩০০০০ এরও বেশি রেজিস্টার্ড ইউজার রয়েছে এবং কয়েকটি বহুজাতিক ব্যাংক সহ এই মুহুর্তে ১২ বিটুবি ক্লায়েন্টের সাথেও কাজ তারা । তাদের এই যাত্রার শেষ ২.৫ বছরে , তারা ১ মিলিয়নেরও বেশি সফল যাত্রা সম্পন্ন করেছেন। বাংলাদেশের গণ পরিবহন দৃশ্যপটকে একটি স্মার্ট এবং আধুনিকায়নে রূপান্তরিত করতে কাজ করে যাচ্ছে শাটল। তাদের এই যাত্রায় রবি, ইউএনডিপি, এক্সেলেরেটিং এশিয়া এবং সিটি ফাউন্ডেশন এর মতো প্লাটফর্মগুলোর সাপোর্ট পাচ্ছেন তারা। 

Subscribe To Our Newsletter

Get updates and learn from the best

More To Explore

Entrepreneur

১০ টি প্রফিটেবল স্মল বিজনেস আইডিয়া, খুব সহজে শুরু করা সম্ভব

একটি ব্যবসা শুরু করা হয়তোবা খুবই মজার বিষয় এবং আপনার জীবনের সবচাইতে সুন্দর এক্সপেরিয়েন্সর মধ্যে একটি। ইহা খুবই গুরুত্বপূর্ন যে আপনার ব্যবসায়ের জন্য সঠিক গ্রোথ

Entrepreneur

পণ্য পরিবহন সমস্যা সমাধানে ডিজিটাল ট্রাক রেন্টাল প্লাটফর্ম “ট্রাক লাগবে “

পণ্য পরিবহনের জন্য প্রায় সময় আমাদের ট্রাকের প্রয়োজন হয়। কিন্তু হাতের কাছে টাইমলি ট্রাক মিলবে কোথায়? নিজে গিয়ে ভাড়া করার ঝক্কিও কম নয়। প্রয়োজনের সময়