১০ টিপস ফলো করে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে লিড জেনারেট করুন

১০ টিপস ফলো করে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে লিড জেনারেট করুন
Share This Post

ডিজিটাল মার্কেটিং এর ফিল্ড হচ্ছে ডায়নামিক আর চেইঞ্জিং। এমন পরিস্থিতিতে লিড জেনারেট করার জন্য সোশ্যাল মিডিয়াকে কাজে লাগানো ও তাদের কাস্টমার বেস কে আরো ব্রড করা একটা মোস্ট ইম্পর্ট্যান্ট টাস্ক। কারণ, এই কন্টিনিউয়াস গ্রোয়িং ফিল্ডে টিকে থাকার জন্য আরো বেশি পার্সোনালাইজড ডাটা ইউজ করা জরুরি। আর ডাটা পার্সোনালাইজড করে মার্কেটিং কে আরো বেশি এডভান্স লেভেল এ নিয়ে যাওয়ার জন্য দরকার লিড জেনারেশান। 

১০ টিপস ফলো করে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে লিড জেনারেট করুন

লিড জেনারেট করার জন্য সবচেয়ে বড় প্লাটফর্মই কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়া। প্রতনিয়ত ৯ বিলিয়ন এর ও বেশি মানুষ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম ইউজ করে। এর প্রায় ৪ বিলিয়নই ফেসবুক, মেটা, মেসেঞ্জার রিলেটেড। তাহলে বুঝতেই পারছেন, আপনার জন্য একটা হিউজ ক্রাউড রয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। আর সবচেয়ে ইন্টারেস্টিং ব্যাপার হচ্ছে এতসব সোশ্যাল মিডিয়া ইউজার এর ৮০ শতাংশই কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়ায় এনগেজমেন্ট এর মাধ্যমে নিজেদের পার্সোনাল অনেক ডাটা শেয়ার করে ফেলে। 

আজকের আর্টিকেল এ সোশ্যাল মিডিয়া থেকে লিড জেনারেট করার জন্য ১০ টি কার্যকর টিপস নিয়েই আলোচনা করবো। 

সোশ্যাল মিডিয়া থেকে লিড জেনারেট করার ১০ টি টিপসঃ

১. লিড জেনারেট করার জন্য আপনার প্রোফাইল অপ্টিমাইজ করুন:

লিড জেনারেশান বিষয়ক স্টাডি গুলো এনালাইসিস করে দেখা যায় যে, স্মার্টলি অপ্টিমাইজ করা সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইল গুলোর সাথে কাস্টমার-রা অনেক বেশি কানেক্টেড থাকতে পছন্দ করে। অর্থাৎ আপনার প্রোফেশনাল সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইল যত বেশি ওয়েল অপটিমাইজড হবে, trustworthy হবে, কাস্টমাররা তত বেশি কমেন্ট, মেসেজ, লাইক ও রিয়্যাকশনের মাধ্যমে আপনার সাথে কানেক্টেড থাকার ট্রাই করবে।

 লিড জেনারেট করার জন্য আপনার প্রোফাইল অপ্টিমাইজ করুন

তাছাড়া আপনিও খুব সহজে এই তথ্য গুলোর সঠিক ব্যবহারের মাধ্যমে লিড জেনারেট করতে পারবেন। রিসেন্টলি HubSpot দ্বারা পরিচালিত একটি স্ট্যাটিস্টিক্স এ দেখানো হয় যে , কোম্পানিগুলি তাদের সোশ্যাল মিডিয়ার বায়োতে একটি ক্লিয়ার কল-টু-অ্যাকশন (CTA) ইনক্লুড করে, তারা ২.৫ গুণ বেশি ক্লিক-থ্রু রেট এক্সপেরিয়েন্স করে৷

২.লিড জেনারেটে কন্টেন্ট ইজ কিং:

কনটেন্ট এর কোয়ালিটির সাথে সাথে অডিয়েন্স এর আগ্রহ ও চেঞ্জ হয়। যেহেতু, সোশ্যাল মিডিয়ায় লিড জেনারেশান করার জন্য আপনার একটি ওয়েল অপটিমাইজড ও একটিভ প্রোফাইল দরকার। সেহেতু, এখানে নিয়মিত কনটেন্ট থাকা জরুরি। তবে কনটেন্ট এর কোয়ান্টিটির পাশাপাশি, নজর দিতে হবে কনটেন্ট এর কোয়ালিটিতেও। 

অর্থাৎ আপনি কত বেশি কনটেন্ট আপলোড করছেন তার থেকেও বেশি ইম্পর্ট্যান্ট, আপনার কনটেন্ট কতটুকু মানসম্মত এবং কতটা রিলেভ্যান্ট। 

লিড জেনারেটে কন্টেন্ট ইজ কিং

কনটেন্ট  ইনস্টিটিউটের একটি সার্ভে তে দেখা গেছে যে, B2B মার্কেটারদের ৭৩ শতাংশ বিশ্বাস করে- ইন্টারেস্টিং কনটেন্ট তৈরি করা লিড জেনারেশান এর জন্য একটা টপ প্রায়োরিটি। 

৩.  বিজ্ঞাপন গুলোর স্ট্র্যাটেজিকাল ইউজ করুন:

সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে দেয়া বিজ্ঞাপন গুলো লিড জেনারেশান এর প্রোসেস কে উল্লেখযোগ্যভাবে গ্রো করাতে পারে। সোশ্যাল মিডিয়া এক্সামিনারের একটি রিপোর্ট অনুসারে, ৫৮% মার্কেটাররা দেখেছেন যে, সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মে পেইড বিজ্ঞাপন গুলো তাদের লিড বাড়াতে সাহায্য করেছে। তাই অডিয়েন্স, ইন্টারেস্ট এবং বিহেভিয়ার এর উপর ভিত্তি করে আপনার এড গুলোকে মডিফাই  করুন এবং তাদের ইফেক্ট ম্যাক্সিমাইজ করুন। 

 বিজ্ঞাপন গুলোর স্ট্র্যাটেজিকাল ইউজ করুন

৪. কম্পিটিশন ও রিওয়ার্ড ট্রেন্ড:

কম্পিটিশন এবং রিওয়ার্ড এর মতো এনগেজমেন্ট একটিভিটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়ার রিচ কে আরো দ্রুত গ্রো করাতে পারবে। একটি সার্ভেতে দেখা গেছে , ব্র্যান্ডের করা কম্পিটিশন গুলোর কারণে অডিয়েন্স এর অংশগ্রহণ ৩৪% বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়াও এখানে অংশগ্রহণকারীদের জন্য আপনার পোস্টগুলি শেয়ার, লাইক বা কমেন্ট করার মত কন্ডিশন রাখা জরুরি। এতে করে আপনি আরো বেশি লিড আকর্ষণ করতে পারবেন এবং আপনার প্রোডাক্ট এর ভিজিবিলিটিও বাড়বে। 

কম্পিটিশন ও রিওয়ার্ড ট্রেন্ড

৫. লিড জেনারেটে লিভারেজ সোশ্যাল প্রুভ:

BrightLocal তাদের একটি স্টাডি তে পাবলিশ কর যে, ৮৭% গ্রাহকই সোশ্যাল মিডিয়ায় কমেন্ট এবং রিভিউ দেখে তারপর কেনাকাটা করার সিদ্ধান্ত নেয়। 

তাই, সোশ্যাল মিডিয়াতে আপনার কাস্টমারের কাছ থেকে পাওয়া পজিটিভ রিভিউ, ফিডব্যাক এবং মন্তব্য গুলো আপনাকে আরো বেশি অডিয়েন্স রিচ করতে হেল্প করবে। মূলত, এতে করে আপনার ব্রান্ডের একটা সোশ্যাল ইমেজ তৈরী হবে, যেটা আপনার ব্র্যান্ডের ক্লারিফিকেশন এর কাজ করবে। 

লিড জেনারেটে লিভারেজ সোশ্যাল প্রুভ

তাই ক্লায়েন্ট বা কাস্টমার এর কমেন্ট এবং রিভিউ এর ক্ষেত্রে, ওপেন মাইন্ডেড থাকার চেষ্টা করুন বরং তাদেরকে আরো উৎসাহিত করুন আপনার সাথে এভাবে এনগেজড থাকার জন্য। 

৬. ইন্সট্যান্ট এনগেজমেন্ট এর জন্য চ্যাটবট ব্যবহার করুন:

আপনার সোশ্যাল মিডিয়া স্ট্র্যাটেজিতে চ্যাটবট ইনক্লুড করতে পারেন। এতে করে ইন্সট্যান্ট এনগেজমেন্ট এ অনেক বেশি ইফেক্টিভ রেজাল্ট পাবেন। কারণ আপনার কাস্টমাররা আপনাকে নক করার সাথে সাথে রেসপন্স আসা করবে। অবশ্যই তারা কোনো প্রশ্নের এন্সার দেরীতে পাওয়া, বা ইগনোরড ফিল করা পছন্দ করবে না।

ইন্সট্যান্ট এনগেজমেন্ট এর জন্য চ্যাটবট ব্যবহার করুন

কিন্তু এমনটা হতে পারে যে, আপনি সারাক্ষণ সোশ্যাল মিডিয়ায় একটিভ ছিলেন না। এমন অবস্থায় অটোমেটিক চ্যাটবট আপনার অনুপস্থিতিতে কাস্টমারদের প্রশ্নের উত্তর দিতে সাহায্য করবে। ড্রিফ্টের একটি প্রতিবেদনে হাইলাইট করেছে যে, চ্যাটবট ব্যবহার করা ব্যবসায় যোগ্য লিডের পরিমাণ ৬৭% বৃদ্ধি পেয়েছে। 

৭.ওয়েবিনার এবং লাইভ ইভেন্ট হোস্ট করুন:

ইন্টারেক্টিভ কন্টেন্ট, যেমন ওয়েবিনার এবং লাইভ ইভেন্ট, আপনার অডিয়েন্সের সাথে যুক্ত হওয়ার একটি দারুণ সুযোগ। 

ওয়েবিনার এবং লাইভ ইভেন্ট হোস্ট করুন

সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম গুলো এই ধরনের ইভেন্টগুলিকে প্রচার এবং হোস্ট করার জন্য একটি আদর্শ স্থান। কারণ এখানে থাকবে হিউজ পরিমাণ ক্রাউড। তাই আপনার সার্ভিস বা প্রোডাক্ট এর সাথে রিলেটেড লাইভ ইভেন্ট ও ওয়েবিনার এর ব্যবস্থা রাখুন।  

৮. লিড জেনারেটে রিটার্গেটিং স্ট্র্যাটেজি এপ্লাই করুন: 

সোশ্যাল মিডিয়াতে, আপনার বিজনেস এর সাথে আগে কানেক্টেড ছিল এমন গ্রাহকদের টার্গেট করুন। কারণ, নতুন কাস্টমারকে আকর্ষণ করার চেয়ে পুরনো কাস্টমারকে গ্র্যাব করা সহজ। কারণ তারা অলরেডি আপনার প্রোডাক্ট সম্পর্কে জানে এবং বিশ্বাস করে। তাই রিটার্গেটিংকে নর্মালাইজ করুন। 

লিড জেনারেটে রিটার্গেটিং স্ট্র্যাটেজি এপ্লাই করুন

 AdRoll-এর একটি রিপোর্টে জানা যায় যে, রিটার্গেট করায় নিয়মিত ডিসপ্লে করা বিজ্ঞাপনের তুলনায় ১০ গুণ বেশি ক্লিক-থ্রু রেট রয়েছে। 

৯. পোস্ট করার সময় এবং ফ্রিকোয়েন্সি অপ্টিমাইজ করুন:

আপনার টার্গেট অডিয়েন্সরা কখন সোশ্যাল মিডিয়াতে সবচেয়ে বেশি একটিভ থাকে তা বুঝুন। এতে করে আপনার প্রোডাক্টের ভিজিবিলিটি বাড়তে পারে। পিক অ্যাক্টিভিটি পিরিয়ডের সাথে তাল মেলানোর  জন্য আপনার পোস্টিং সময়সূচীকে অডিয়েন্স এর একটিভিটির ওপরে ডিপেন্ড করে সাজান এবং একটা ধারাবাহিক ফ্রিকোয়েন্সি বজায় রাখুন।

পোস্ট করার সময় এবং ফ্রিকোয়েন্সি অপ্টিমাইজ করুন

১০.লিড জেনারেটে ক্যাপাবিলিটি এনালাইসিস:

আপনার লিড জেনারেশন প্রোসেস কে আরে এডভান্স করতে নিয়মিতভাবে আপনার সোশ্যাল মিডিয়া মেট্রিক্স এনালাইসিস করুন। Facebook এবং LinkedIn-এর মতো প্ল্যাটফর্মগুলো ডিটেইলড এনালাইসিস অফার করে। এগুলোর মাধ্যমে আপনি ইউজার বিহেভিয়ার, এনগেজমেন্ট এবং কনভার্সন রেট সম্পর্কে ইনসাইটস পাবেন। 

লিড জেনারেটে ক্যাপাবিলিটি এনালাইসিস

বিভিন্ন স্টাডি এবং পরিক্ষিত স্ট্র্যাটেজির মাধ্যমে প্রমানিত এই ১০ টি টিপস আপনকে আপনার বিজনেস এর জন্য লিড জেনারেট করতে, পাশাপাশি ব্র্যান্ড রেপুটেশন বৃদ্ধি এবং কনভার্সন রেট গ্রো করতে সাহায্য করবে। তাই, আপনার লিড জেনারেশান জার্নিতে সফল হতে আপনার টার্গেট এ ফোকাসড থাকুন এবং টিপস গুলো ফলো করুন। 

Don't wait!
Get the expert business advice You need in 2022

It's all include in our newsletter!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More To Explore
ডিজিটাল মার্কেটিং এ নিশ বেজড কম্পিটিটর রিসার্চ কিভাবে করবেন
Marketing

ডিজিটাল মার্কেটিং এ নিশ বেজড কম্পিটিটর রিসার্চ কিভাবে করবেন?

আপনার বিজনেস নিশ কি হবে? কি নিয়ে কাজ করবেন? বা কোন মার্কেটিং স্ট্র্যাটেজিই এপ্লাই করবেন। সব কিছু সিলেক্ট করার আগে মোস্ট ইম্পর্ট্যান্ট ফ্যাক্ট হচ্ছে কম্পিটিটর

প্যাশনকে প্রিন্ট-অন-ডিমান্ড সাকসেস এ পরিণত করুন
Marketing

প্যাশনকে প্রিন্ট-অন-ডিমান্ড সাকসেস এ পরিণত করুন

জীবনে সাকসেসফুল হতে হলে অবশ্যই আপনাকে আপনার যেকোনো ধরনের কাজের প্রতি দৃঢ় প্যাশন গড়ে তুলতে হবে। আমাদের সকলের কিছু ভালো লাগার জিনিস রয়েছে যেমন ছবি আঁকা।